অধিভুক্ত সাত কলেজে ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

জাতীয় দেশজুড়ে শিক্ষা
কালের ছবি ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সাতটি কলেজে ভুল প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর আবেদন করলেও কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এতে বিপাকে পড়েছেন শিক্ষার্থীরা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, গত রবিবার সম্মান দ্বিতীয় বর্ষের ইংরেজি ও অর্থনীতি বিভাগের (বাংলাদেশের সমাজবিজ্ঞান, পত্র কোড-২২২০০৯) পরীক্ষা দুটি কেন্দ্রে ভুল প্রশ্নপত্রে নেওয়া হয়। এর মধ্যে সরকারি কবি নজরুল কলেজ কেন্দ্র এবং সরকারি তিতুমীর কলেজ কেন্দ্রে অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের প্রশ্নপত্রে নিয়মিতদের পরীক্ষা নেওয়া হয়। সরকারি তিতুমীর কলেজ কেন্দ্রে সরকারি বাংলা কলেজের এবং সরকারি কবি নজরুল কলেজ কেন্দ্রে বেগম বদরুন্নেসা মহিলা কলেজের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের ‘ক’ বিভাগে ১২ থেকে ১০টি, ‘খ’ বিভাগে ছয় থেকে তিনটি এবং ‘গ’ বিভাগে পাঁচ থেকে দুটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়। তবে নিয়মিত শিক্ষার্থীদের মোট ছয়টি থেকে তিনটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়।

তবে গত রবিবার সরকারি তিতুমীর কলেজ কেন্দ্র ও কবি নজরুল সরকারি কলেজ কেন্দ্রে অনিয়মিত শিক্ষার্থীদের প্রশ্নপত্রেই নিয়মিত শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়া হয়। এতে পরীক্ষার হলে বিপাকে পড়েন শিক্ষার্থীরা। তবে বাকি কলেজ কেন্দ্রগুলোতে নির্ধারিত প্রশ্নে নিয়মিত ও অনিয়মিতদের পরীক্ষা নেওয়া হয়।

এ বিষয়ে সরকারি বাঙলা কলেজের ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক সাবরিনা ইসরাত বলেন, ‘আমরা এরই মধ্যে বিষয়টির সুরাহা চেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বরাবর আবেদন করেছি। মোবাইল ফোনে আবেদন পাওয়ার কথা আমাকে জানিয়েছেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক।’

বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজের ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক রহিমা আরজু বলেন, ‘আমাদের শিক্ষার্থীদের দুর্ভাগ্য যে নিয়মিত শিক্ষার্থী হয়েও কবি নজরুল কলেজে অনিয়মিতদের প্রশ্নপত্রে তাদের পরীক্ষা দিতে হয়েছে। এটার সুরাহা হওয়া উচিত।’ কবি নজরুল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক আমেনা বেগম বলেন, ‘শুরুতেই প্রশ্নপত্র নিয়ে অভিযোগ করলে এটি এড়ানো যেত। পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর বলায় আমাদের পক্ষে কিছুই করার ছিল না। এরপরও আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্র্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি। তারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।’

 

কালের ছবি/রাজীব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *