ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নির্বাচন কমিশন ভবনের ছাদ বাগানের গল্প

জাতীয় দেশজুড়ে শিক্ষা

জাকির হোসাইন জিকু: ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের নির্বাচন কমিশন অফিসে গেলে তিন তলায় ওঠার সাথে সাথে নান্দনিক ১ ছাদ বাগানের দেখা মিলে চোখ রঙ্গীন স্বপ্নে মেতে উঠে প্রতিবেদকের এই ছাদ বাগান দেখে। ছাদে রয়েছে অনেক ফল – ফুল – ঔষধি গাছ যা দেখলে জুড়িয়ে যায় মন।

সরেজমিনে খোজ নিয়ে ছাদ বাগানে গুড়ে দেখা যায়, নিজ অফিসের বারান্দায় সামনে ছাদ ব্যবহার করে নিজের মতো করে গড়ে তুলেছেন ছাদ বাগান। বাগানে শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন জাতের মৌসুমি ফল, ফুল ও ঔষধি গাছ। বাগানে রয়েছে গোলাপ ফুল, বেলি ফুল, গাদা ফুল,কামিনী ফুল, জবা ফুল, সহ বিভিন্ন ফুলের সমাহার। ফলের মধ্যে আছে পাকিস্থানি কমলা, বারি মালটা, ডালিম, লেবু, পেয়ারা, জাম্বুরা, ফুল ফলের পাশাপাশি আছে বিভিন্ন প্রকারের ঔষধি গাছ।

গাছের প্রতি ভালোবাসা থেকেই নিজের অফিসের ছাদে গড়ে তুলেছেন, ফল, ফুলের বাগান। শুরুর পাচঁ মাস পর থেকে বাগানে উৎপাদন শুরু হয় নিরাপদ ফল-মূল বাগানটি করেছেন সৌখিন বাগানি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নির্বাচন কমিশনার ‘শখের ছাদ বাগান’ এখন হয়ে উঠেছে অফিসার ও স্টাফদের প্রতিদিনের পুষ্টি চাহিদা মেটানোর উৎস। কর্মস্থলে ছাদে নান্দনিক বাগান গড়ে তুলেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা নির্বাচন কমিশনার বৃক্ষপ্রেমী এ অফিসার।

জেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ জিল্লুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, আমি চাকরির পাশাপাশি বাগানে মনোযোগী হই। এক পর্যায়ে গত দুই বছর ধরে শখের বসে গড়ে তুলি ছাদ বাগান। এতে সব মিলিয়ে খরচ হয় ৩০-৩৫ হাজার টাকা। এরকম বাগান করতে কেবল অবসরে সময় দিলে সহজেই এমন বাগান করা সম্ভব। এ থেকে বারো মাসই ফল ও ফুল পাওয়া যায় যা থেকে আমাদের অফিসের নিত্য দিনের পুষ্টির চাহিদা মিটছে।

এ বিষয়ে কথা হলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তারা বলেন, আমরা ছাদ বাগানের পরামর্শ দিয়ে থাকি। এ থেকে ভেজাল ও বিষমুক্ত ফল উৎপাদিত হয়। সৌন্দর্য ও চিত্ত বিনোদনের ব্যাপারও আছে। পাশাপাশি আগামী দিনে ছাদ বাগানের মাধ্যমেও পুষ্টি চাহিদা পূরন হবে বলে আশা করি।

 

কালের ছবি/রাজীব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *