বিরাজনীতি করণের জন্য সম্পূর্ণভাবে আওয়ামী লীগ দায়ী: মির্জা ফখরুল

জাতীয় দেশজুড়ে রাজনীতি

মো: জাহিদ হাসান মিলু, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বাংলাদেশে বিরাজনীতি করণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে এটার জন্য সম্পূর্ণভাবে দায়ী আওয়ামীলীগ। এক এগারোতে শুরু হয়েছে বিরাজনীতি করণ, মাইনাস টু থিওরি, রাজনীতি থেকে দুরে সরিয়ে দেওয়া। আওয়ামীলীগ এক এগারোর ফখরুদ্দিন, মহিউদ্দিনের সহযোগিতা নিয়েই ক্ষমতায় এসেছে। পরিষ্কার করে আওয়ামীলীগের সভানেত্রী বলেও ছিলেন, আমরা তাদের সমস্ত অপকর্মগুলো মাফ করে দিব এবং তিনি নিজেই বলেছেন তারা ক্ষমতায় এসেছেন আমাদের আন্দোলনের মধ্য দিয়ে।

০২ নভেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়িস্থ নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমীর।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বিএনপি একমাত্র দল যে দলটি অতীতে সংগ্রাম লড়াই করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে। আগামীতেও ইনশাল্লাহ আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহামানের নেতৃত্বে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে বলেন তিনি।

সারা দেশে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় বিএনপিকে দোষাপোর করা হচ্ছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, দূর্গাউৎসবকে ঘীরে যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রিতি ক্ষুন্ন করার চেষ্ঠা করা হয়েছে। সরকার নিজেরাই এই ঘটনা ঘটিয়েছে সে কথা আমরা বারবার বলেছি। আর এটা প্রমাণিত হয়েছে। এঘটনায় রংপুরে ছাত্রলীগের ছেলেরা ধরা পরেছে। কুমিল্লাতে আওয়ামীলীগের দুই গ্রæপের দ্বিধা-দন্ডের জন্য সমস্যা গুলো তৈরী হয়েছে। গায়ের জোরে সরকার কথা চাপিয়ে দিতে চায় এগুলো হচ্ছে তাদের উদর প্রীতি বদর ঘাটে চাপানো অন্যদিকে বিএনপিকে রাজনৈতিক মাঠ থেকে সরিয়ে দেওয়ার অপচেষ্টা করা হচ্ছে। প্রকৃত সত্য মানুষ জেনে গেছে যে সরকারের তরপ থেকে এগুলো করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, মানুষের নিরাপত্তা, মানুষের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড, সহ সবগুলো নিয়ে আমরা ভিশন টুয়েন্টি থার্টি গ্রহণ করেছি। যেখানে সকল ধর্মের মানুষের সমান অধিকার থাকবে তারা তাদের ধর্মকর্ম পালন করতে পারবে। যেখানে ব্যক্তি স্বাধীনতা নিশ্চিত হবে, সাংবাদিকরা লিখতে পারবে অর্থাৎ একটি মুক্ত গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র নির্মাণের কথা আমরা তুলে ধরেছি। সেই ক্ষেত্রে দ্বিধার কোন অবকাশ নেই যে, বিএনপি অতীতে জনগণের নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে পাঁচ বার রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেছে। আগামীতে যদি নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয় তাহলে বিএনপি আবার রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পাবে।

সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় কালে এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফয়সাল আমিন, সহ-সভাপতি নূর করিম, সহ-সভাপতি ওবায়দুল্লাহ মাসুদ, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব হোসেন তুহিনসহ অনেকে।

কালের ছবি/রাজীব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *