রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার প্রতিবাদ

আইন আদালত জাতীয় দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে

এয়াকুব  শরীফ, ঢকা: রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার নিরপেক্ষ তদন্ত ও বিচার দাবী করে নাগরিক পরিষদের আহবায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দীন এক রিরৃতিতে বলেন” আরাকানের বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর নেতা মুহিবুল্লাহকে হত্যার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত করে খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

রোহিঙ্গা শিবিরে হামলা, খুন,  জখমের মধ্যদিয়ে দেশী বিদেশী চক্রান্ত্রকারীরা নিপীড়িত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে জঙ্গী-সন্ত্রাসী বলে চিহ্নিত করতে চায়। মুহিবুল্লাহকে গুলি হত্যা তারই ইঙ্গিত বহন করে। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর নেতা  মুহিবুল্লাহকে গুলি করে হত্যার মধ্যদিয়ে শিবির অশান্ত করে চক্রান্তকারীরা তাদের সুদূর প্রসারী চক্রান্তের জাল বিস্তার করল। রোহিঙ্গা শিবিরে অবৈধ অস্ত্রের চালানকারীরা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী এবং এদেশের শত্রু। ”

তিনি আরও বলেন”ধর্মান্তরিত করার কাজে নিয়োজিত দেশী বিদেশী মিশন ও এনজিওদের অপতৎপরতা এবং তাদের আন্তর্জাতিক মদতদাতারাও চক্রান্তের পেছনের কুশিলব বলে আমরা মনেকরি। এ মুহুর্তে তাদের কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রন জরুরী। ”

নাগিরক পরিষদের আহবায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দীন আরও বলেন” আমরা মুহিবুল্লাহর সকল কর্মকান্ড সমর্থন না করলেও তাকে হত্যা করাকে তীব্র নিন্দা জানাই এবং সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবী করছি। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের চরম ব্যর্থতার নিন্দা জানাই। অবিলম্বে পূর্ণ নিরাপত্তা ও নাগরিক মর্যাদায় তাদের প্রত্যাবাসনে বিশ্ববাসীর সহযোগীতা কামনা করছি। ”

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৮ টার দিকে কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিজ কার্যালয়ে বাংলাদেশে আশ্রিত থাকা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির প্রধান নেতা মুহিবুল্লাহ সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন।

 

কালের ছবি/ রাজীব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *