স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সেচ্ছাচারীতায় টিকা পাননি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

জাতীয় দেশজুড়ে শিক্ষা স্বাস্থ্য
জাহিদ, নারায়নগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা নিতে এসে চরম ভোগান্তি ও হয়রানির শিকার হচ্ছেন শিক্ষক – শিক্ষার্থী সহ সাধারণ মানুষ।অনলাইনে ম্যাসেজ পেয়ে দুর দুরান্ত থেকে ভ্যাক্সিন নিতে আসা বিভিন্ন বয়সী নারী পুরুষ সারাদিন অপেক্ষা করে টিকা না পেয়ে চরম ক্ষোভ রাগ নিয়ে ফিরে গেছেন। এমনকি ৩/৪ বার এসেও ২য় ডোজ টিকা না পাবার অভিযোগ করেন অনেকে।

শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগ থেকে বর্হিঃ বিভাগ পর্যন্ত দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করেন বহু মানুষ।হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনা এবং উদাসীনতার কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েন শিক্ষক -শিক্ষার্থী সহ সাধারণ মানুষ।দুপুর দিকে হাসপাতালের দক্ষিনের গেট ভাংচুর করে উত্তেজিত জনতা।একপর্যায়ে থানা থেকে পুলিশ এসে পরিস্থিতি শান্ত করে।
সরকারি ইব্রাহিম আলম চান স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আহাম্মদ হালিম মজহার জানান,১৫ জনের বেশি শিক্ষক নিয়ে সকাল ৮ঃ০০ টায় এসেছেন।কিন্তু টিকা নিতে পারেননি। কিন্তু সরকারি আদেশ অনুযায়ী ভ্যাক্সিন গ্রহণ করে কাল থেকে স্কুল কলেজ খুলতে হবে।বিবিজোড়া থেকে আসা ৬০ বছরের রহিম বাদশা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ৫ বার এসেও টিকা নিতে পারেননি।৬৮ বছরের নাসিমা খাতুন বলেন, ম্যাসেজ পেয়ে ৩ বার এসেছেন।কিন্তু টিকা নিতে পারেননি।
এমন অসংখ্য অনিয়ম এবং দুর্নীতির  অভিযোগ রয়েছে সরকারি এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক এবং টিএইচও ডা.মেহেবুবা সাঈদের বিরুদ্ধে। হাসপাতালের স্টাফ এবং চিকিৎসা সেবা প্রার্থীদের সঙ্গে অসৌজন্য মুলক আচরণ করেন উল্লেখ করে একাধিক চিকিৎসক এবং কর্মচারীরা জানান,ডা.মেহেবুব সাঈদের সীমাহীন দুর্নীতি এবং অনিয়মের কারণে সবাই অতিষ্ট।
ডা.মাহাবুব আলম জানান,৬ শ টিকা মজুদ থকার পরও শুধু টিএইচও ডা. মেহেবুবা সাঈদের ভুল সিদ্ধান্তের কারণে আজ অনেক শিক্ষক – শিক্ষার্থী সহ সাধারণ মানুষ টিকা না পেয়ে ফিরে গেছেন।যা সম্পুর্ন অযৌক্তিক।
স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সমন্বয় কমিটির বেশির ভাগ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হয়না জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকার জানান, টিকার বিষয় নিয়ে কোনো রকম আলোচনা করেন না  টিএইচও ডা মেহেবুবা সাঈদ।অনেকেই টিকা নিয়ে হয়রানির অভিযোগ করেন উল্লেখ করে তিনি জানান, অবশ্যই জনস্বাস্থ্য বিষয়ক কমিটি এ বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন।
জানতে চাইলে, উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ রশিদ বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা নিয়ে কোনরকম অনিয়ম হলে অবশ্যই এমপি সাহেবের সাথে আলোচনা করে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এ বিষয়ে জানতে টিএইচও ডা মেহেবুবা সাঈদের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
কালের ছবি/ রাজীব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *