প্রবীণ কর্মাহত ভাতাসহ ৩ দফা দাবীতে সাংবাদিকদের মানববন্ধন

অর্থনীতি জাতীয় দেশজুড়ে

এসএম রাজীব: দেশের প্রবিণ ও কর্মাহত সাংবাদিকদেরকে প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকা ভাতা ও মৃত্যুবরণকারী সাংবাদিকের পরিবারকে ন্যূনতম ৫ লাখ টাকা সহায়তা দেয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন গণমাধ্যম কর্মীরা। এসময়ে বিজ্ঞাপনের বিল থেকে কেটে নেয়া ১৫ শতাংশ ভ্যাট ও ৪ শতাংশ আয়কর বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে জমা প্রদাণের জন্যে সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বাংলাদেশ প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের আহ্বানে জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনের সভাপতি একেএম করম আলীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক শিকদার আব্দুস সালামের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক মহাসচিব আব্দুল জলিল ভূইয়া, ওমর ফারুক, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক খায়রুল আলম, বাংলাদেশ প্রবীণ ও কর্মাহত সাংবাদিক কল্যাণ পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম ইকবাল, মুনীর আহাম্মদ, হামিদ মোহাম্মদ জসিম, আবু সাইদ, এম শাহজাহান সাজু, এস এম জহিরুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন কাজল, মানিক লাল, প্রবীণ নারী সাংবাদিক ফরিদা বেগম শিল্পী প্রমুখ।

বক্তব্যে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আব্দুল মজিদ বলেন, প্রবীণ বয়সে তারা সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন, সেই সমস্যা সমাধানের জন্যে সরকারের কাছে আবেদন করেছেন। সরকার যদি এটি গ্রহণ করেন তাহলে সমস্যার সমাধান হবে। কিন্তু একজন সাংবাদিক নেতা হিসাবে বলেতে পারি আমাদের সাংবাদিক বান্ধব প্রধানমন্ত্রী যে সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাষ্ট করে দিয়েছেন সেখানে ৪০ কোটি টাকার উপরে চিফ মানি আছে। সেখান থেকে সারা বছর সাংবাদিকদের আবেদনের পেক্ষিতে সহায়তা করা হচ্ছে। কিন্তু আমি মনে করি এটা শুধু মলম দিয়ে ঘা সাড়ানোর একটি ব্যাবস্থা। এর মাধ্যমে সমস্যার স্থায়ী সমাধান হচ্ছে না।

এসময়ে সাংবাদিক নেতারা আরো বলেন, সাংবাদিকতার পেশায় অবসর বলতে কিছু নেই। মৃত্যুর আগ পর্যন্তও সাংবাদিক। কিন্তু বৃদ্ধ বয়ছে বা পঙ্গুত্ববরণ করলে তিনি কর্মে অক্ষম হয়ে পড়েন। সরকারী বেসরকারী সব পেশায় অবসর বা পেনশন থাকলেও সাংবাদিকতায় তা নেই। প্রধানমন্ত্রী দেশে বিভিন্নভাবে ভাতা প্রথা চালু রেখেছেন। কিন্তু সেক্ষেত্রে সাংবাদিকরা কোন ভাতা পাচ্ছেন না। ফলে সাংবাদিকরা বৃদ্ধ বয়সে অর্থ কষ্টে ভোগেন। তাই তাদের এই দাবী মেনে নিলে কিছুটা অর্থ কষ্ট লাঘব হবে।

মানববন্ধন শেষে সংগঠনের সদস্যরা প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদাণ করেন।

কালের ছবি/ রাজীব

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *