বঙ্গবন্ধুর সব স্মৃতি মুছে ফেলতে চেয়েছিলো জিয়া এরশাদ খালেদা- আইনমন্ত্রী

আইন আদালত জাতীয় দেশজুড়ে রাজনীতি
জাকির হোসাইন জিকু
বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) দুপুরে কসবা উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাত বার্ষিকী উদযাপনের প্রস্তুতিমুলক এক ভার্সুয়াল সভা অাজ অনুষ্ঠিতহয়। এতে প্রধান আতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী এডভোকেট আনিসুল হক।
 প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন  জিয়াউর রহমান, এরশাদ ও খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর সবস্মৃতি মুছে ফেলতে চেয়েছিলো। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের দেশ বিদেশে সরকারী চাকুরি দিয়েছিলেন। এখন তারা বড় বড় কথা বলে। জাতি আর তাদেরকে কোন সুযোগ দেবেনা।
কসবা উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এমজি হাক্কানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট রাশেদুল কাওসার ভূইয়া জীবন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট আনিসুল হক ভূইয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী মো.আজহারুল ইসলাম, রুহুল আমিন ভূইয়া বকুল, কসবা পৌর মেয়র মো.এমরান উদ্দিন জুয়েল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো.মনির হোসেন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা সিদ্দিকী প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আইনমন্ত্রী আরো বলেন, ১৫ আগষ্টের কালো রাতে বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার মাধ্যমে খুনিরা তাঁর স্বপ্নকে মুছে ফেলতে চেয়েছিলো। দেশকে ব্যর্থ রাষ্টে পরিণত করতে চেয়েছিলো। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু এদেশের মানুষের মুখে হাসি দেখতে চেয়েছিলেন। তাই জাতির জনকের কন্যা মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে কাজ করছেন।
তিনি জনগণকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান। এসময় আইনমন্ত্রী স্বাস্থ্যবিধি মেনে জাতীয় শোক দিবস পালন ও দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে এলাকার অসহায় ও কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণের নির্দেশ দেন। প্রস্তুতি সভায় উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগসহ সকল ইউনিটের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিগনসহ দলীয় লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *